এশিয়া কাপের পর্দা উঠছে আজ

ভারতের সামনে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ

মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

সিটিজিবার্তা২৪ডটকম

Asia cup 2016

চট্টগ্রাম : অপেক্ষার প্রহর শেষ। এবার টি২০ ক্রিকেটের ধুন্ধুমার লড়াই উপভোগের পালা। চার-ছক্কার কাঁপুনিতে গর্জে উঠবে গোটা গ্যালারি। কখনো বোলারদের ঝলসানো বোলিংয়ে উপড়ে যাবে স্ট্যাম্প। বুনো উল্লাসে মাতবে গোটা শিবির। এশিয়ার চার পরাশক্তির সঙ্গে বাছাই পর্বে উতরে আসা দল সংযুক্ত আরব আমিরাত। আজ বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ছয় মার্চ, ১২ দিনের টি২০ ক্রিকেটের রোমাঞ্চকর ‍উপাখ্যান।

শুরু হওয়ার অপেক্ষায় প্রথমবারের মতো টি২০ ফরম্যাটের এশিয়া কাপ। ঘাম ঝড়ানো অনুশীলনে প্রস্তুত সব দল। আগামীকাল বুধবারই পর্দা উঠবে ১৩তম এশিয়া কাপ ক্রিকেটের। উদ্বোধনী ম্যাচেই সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় মিরপুরে বদলে যাওয়া স্বাগতিক বাংলাদেশের মুখোমুখি টি২০ ক্রিকেটের অদম্য দল ভারত। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি ও বিটিভি।

উদ্বোধনী ম্যাচের আগে ঘুরে-ফিরে আসছে গত বছরের জুনে ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। ওই সিরিজে পেস বিস্ময় হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। তিন ম্যাচের ওই ওয়ানডে সিরিজে ম্যান অব সিরিজও হয়েছিলেন বাঁহাতি কাটার মাস্টার। তিনি ম্যাচে তিনি নিয়েছিলেন ১১ উইকেট (প্রথম ম্যাচে পাঁচ, দ্বিতীয় ম্যাচে ছয়টি)। সেই মুস্তাফিজকে নিয়ে এবার এশিয়া কাপে ভারত বধের স্বপ্ন দেখছে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

কাগজে-কলমের হিসেবে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে এশিয়া কাপ। তবে সেটা ছিল বাছাই পর্ব। বাছাই পর্ব শেষ, এবার চূড়ান্ত পর্বের লড়াই শুরু। বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলংকার সঙ্গে পঞ্চম দল হিসেবে এখন শিরোপার লড়াইয়ে যোগ দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। সব দলই এখন ঢাকায়। তবে বুধবার সন্ধ্যায় ঢাকায় পা রাখবে পাকিস্তান দল।

ওয়ানডে ক্রিকেটে গত বছরের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স বাংলাদেশ দলকে নিয়ে গেছে নতুন এক উচ্চতায়। এবার টি২০ পরীক্ষার জন্য তৈরি মাশরাফি ব্রিগ্রেড। দুটি বড় মঞ্চে টানা টি২০ ক্রিকেট খেলতে হবে সাকিব-মাশরাফিদের। ভারতের বিপক্ষে এশিয়া কাপের ম্যাচ দিয়ে বুধবার শুরু হচ্ছে সেই টি ২০ চ্যালেঞ্জ। মার্চে ভারতে শুরু হবে টি২০ বিশ্বকাপ।

Bd_Cricket_team

টি২০ ফরম্যাটে বড় দলগুলোর বিপক্ষে খুব বেশি সাফল্য পায়নি টাইগাররা। এবার বাংলাদেশের সামনে সেই ব্যর্থতা কাটানোর বড় সুযোগ। মঙ্গলবার পাঁচ দলের অধিনায়ককে নিয়ে ট্রফি উন্মোচন ও প্রথম ম্যাচের দুই দলের অধিনায়কের সংবাদ সম্মেলন হয় টিম হোটেল লা মেরিডিয়ানে।

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, ‘ভারত বিশ্বের অন্যতম সেরা একটি দল। ওদের হারাতে গেলে আমাদের তিন বিভাগেই আপ টু মার্ক থাকতে হবে। তাই আমরা যেন আত্মবিশ্বাস নিয়ে এই ম্যাচটি খেলতে পারি। ফল কী হবে সেটা নিয়ে চিন্তা করা থেকে ভালো খেলা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সেটাই নিয়েই চিন্তা করছি। আর নিজেদের দিনে যেকোনো কিছুই হতে পারে।’

গত জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের পর বাংলাদেশ খুলনা ও চট্টগ্রাম দুই জায়গায় অনুশীলন ক্যাম্পে নিজেদের প্রস্তুত করেছে মাশরাফি বাহিনী। সর্বশেষ কয়েকদিন নিজেদের ভুল-ত্রুটিগুলো সংশোধন করার চেষ্টাও করেছেন তারা। এমনকি দলে কোনো ইনজুরি নেই। সবাই ফিট। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ইনজুরিতে থাকা মুস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে ম্যাচের আগেরদিনও সবচেয়ে বেশি আলোচনা হল।

বিশেষ করে গতবছর ভারতকে এই মুস্তাফিজই যে দুমড়ে মুচড়ে দিয়েছিলেন। বাংলাদেশ শুধু মুস্তাফিজের উপরই ভরসা করছে না। দলে রয়েছে একাধিক বিচিত্র পেসার। মুস্তাফিজের সঙ্গে মাশরাফি মর্তুজা, তাসকিন আহমেদ, আল-আমিন হোসেন ও আবু হায়দার রনি। তিন পেসার নিয়েই তাই মাঠে নামতে পারে স্বাগতিকরা।

পেস বোলিং বেশি শক্তিশালী হলেও স্বাগতিকদের স্পিনটাও একেবারে মন্দ নই। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের সঙ্গে আরাফাত সানি। পার্ট টাইমার হিসেবে আছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেনরাও কয়েক ওভার হাত ঘুরিয়ে নিতে পারবেন। আর তাই সব মিলিয়ে ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিং অর্ডারের বিপক্ষে স্বাগতিকদের বোলিং আক্রমণটা শক্তিশালীই। ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের সেরা বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল না থাকায় যা একটু ভাবাচ্ছে মাশরাফিকে। তবে তার পরিবর্তে ইমরুল কায়েস বা মোহাম্মদ মিঠুন সুযোগ পেলে তাদের সামনেও নিজেদের প্রমাণের সুযোগ থাকছে।

অপরদিকে স্বাগতিক বাংলাদেশের জন্য সুখবর হতে পারে মহেন্দ্র সিং ধোনির চোট। এই কারণে বুধবার তাকে দলে নাও দেখা যেতে পারে। সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের কাছে হেরে তেঁতে আছেন বিরাট কোহলিরা। তার ওপর টি২০ ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলংকাকে হারিয়েই ভারত দল বাংলাদেশে এশিয়া কাপে খেলতে এসেছে। তাই জয় দিয়েই এই আসর শুরু করতে চায় ভারতও।

Indian_cricket_team

তবে এবারও পেসার মুস্তাফিজকে নিয়ে দারুণ সতর্ক ভারত। এ বিষয়ে বিরাট কোহলি বলেন, ‘বাংলাদেশের মতো কন্ডিশনে বাঁহাতি এই পেসার একাই যদি চার-পাঁচটা উইকেট তুলে নেয় তাহলে প্রতিপক্ষের জন্য কাজটা আরো কঠিন হয়ে যায়। তাছাড়া মুস্তাফিজ ১৪০ কিলোমিটার বেগে বলও করতে পারে। আসলে এমন বোলারকে খেললে নিজের ব্যাটিং স্কিলেরও উন্নতি ঘটে।’

গত দুটো এশিয়া কাপ ভালো যায়নি ভারতের। তাই এবার শুধু পাকিস্তান নয় সব দলগুলো নিয়ে আসরের শুরু থেকেই সতর্ক ভারত। এবারের আসরের প্রতিটি ম্যাচকে সমান গুরুত্বের চোখে দেখছে বিরাট কোহলি।

শুরুটা কার ভালো হয়, তা সময়ই বলে দেবে। তবে ঘরের মাঠে টাইগারদের জ্বলজ্বলে পারফরম্যান্স দেখতে উন্মুখ হয়ে আছে কোটি কোটি ক্রিকেট ভক্তরা। শুরুটা উড়ন্তই চাচ্ছে সবাই।

 

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.