কর্ণফুলী নদীর দুপাড়ে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে স্থবিরতা

নিজস্ব প্রতিবেদক,  সিটিজিবার্তা২৪ডটকম

রোববার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬

karnofully

চট্টগ্রাম: উচ্চ আদালতের রায়ের একমাস পরেও রায়ের কপি পাওয়া যায়নি। তাই শুরু করা যাচ্ছেনা বন্দর নগরী চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর দুপাড়ে গড়ে ওঠা দুই হাজারের বেশি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম।

জেলা প্রশাসক সূত্রে বলছেন, রায়ের কপি পেলেই শুরু হবে তার বাস্তবায়ন। কর্ণফুলী নদীর দুইপাড়ে অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে ২ হাজার ১৮১টি স্থাপনা। ফলে সংকুচিত হয়ে পড়েছে নদী। নিয়মিত হচ্ছে ভরাট।

কর্ণফুলী নদী সংরক্ষণের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন দায়ের করেন হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশের পক্ষে মনজিল মোরসেদ। এ পরিবেশবাদী সংগঠনের রীটের প্রেক্ষিতে এসব স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য গেল ১৬ আগস্ট প্রশাসনকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

অবৈধ দখলদারদের সরে যেতে ৯০দিন সময় বেধে দিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারির কথা বলা হয় রায়ে। তবে রায় দেয়ার একমাস পার হয়ে গেলে তা হাতে না পাওয়ার কথা বলছে প্রশাসন। রায় কপি যখনই পাওয়া যাবে তখনই তা কার্যকরে প্রস্তুত থাকার কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

তবে আদালতের সূত্র বলছে, কিছু প্রক্রিয়া শেষ হলেই রায়ের কপি পৌছে যাবে প্রশাসনের কাছে।

এদিকে, প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু না হওয়ায় সরে যাওয়ার ব্যাপারে কোন তৎপরতা নেই স্থাপনা মালিকদেরও।

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.