কুষ্টিয়ায় প্রধান শিক্ষকসহ ২ শিক্ষককে হকিষ্টিক দিয়ে হামলা

সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০১৬

সিটিজিবার্তা২৪ডটকম 

jinai ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃকুষ্টিয়ার ইবি থানার আব্দালপুর ইউনিয়নের লক্ষিপুর হাসানবাগ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কম্পিউটার শিক্ষককে হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করেছে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নামধারী ক্যাডাররা।

ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকালে ওই বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে। এঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। হামলা শেষে আহত দুই শিক্ষককে বেশ কয়েক ঘন্টা বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে অবরুদ্ধ করে রাখে হামলাকারীরা।

এ ঘটনায় ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামছুল আলম ইবি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। লিখিত অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লক্ষিপুর হাসানবাগ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে বেশ কিছুদিন যাবৎ বিদ্যালয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছিলো।

ম্যানেজিং কমিটির বর্তমান সভাপতি আবুল কালাম আজাদকে বাদ দিয়ে এডহক কমিটি গঠন করার জন্য বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের এক বর্ষিয়ান নেতার ছোট ভাই প্রধান শিক্ষককে ফোনে চাপ দিতে থাকে। এরই এক পর্যায়ে ওই আওয়ামীলীগ নেতার ভাই এর সাথে প্রধান শিক্ষক সামছুল আলমের ফোনে কথা কাটাকাটি হয়।

আওয়ামীলীগ নেতার ভাই বিষয়টি আব্দালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে জানালে তারা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। পরে তাদের নেতৃত্বে সোমবার সকালে জিল্লু, দুলাল, মুসা, সাদ্দাম, শাহিন, মজনু ও আনিছুরসহ ১০/১২ জনের একদল স্থানীয় আ’লীগের ক্যাডার বাহিনী বিদ্যালয়ের অফিস রুমে ঢুকে প্রধান শিক্ষক সামসুল আলম ও কম্পিউটার শিক্ষক হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের উপর হামলা চালিয়ে তাদেরকে হকস্টিক দিয়ে পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে।

হামলা শেষে বেশ কয়েক ঘন্টা আহত দুই শিক্ষককে তারা বিদ্যালয়ের অফিস রুমে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে খবর পেয়ে ইবি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত দুই শিক্ষকে উদ্ধার করে। হামলার শিক্ষার আহত দুই শিক্ষক স্থানীয় এক ক্লিনিক থেকে চিকিৎসাধীন নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষক সামসুল আলম বাদী হয়ে কুষ্টিয়ার ইবি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ইবি থানার ওসি শফিকুল ইসলাম জানান, বিদ্যালয়ে এডহক কমিটি গঠন নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে দু’টি গ্রুপের বিভক্ত হওয়ার কথা শুনেছি।

একটি গ্রুপ এডহক কমিটি গঠনের জন্য উপজেলা নির্বাহী বরাবর আবেদন করেছে। এনিয়ে এক গ্রুপের নেতা প্রধান শিক্ষককে মোবাইল ফোনে ভয়ভীতি দেখিয়েছে। খবর পেয়ে বিদ্যালয়ে আমি নিজেই পরিদর্শন করেছি।

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.