কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের দফায় দফায় হামলা

রোববার, ১ জুলাই ২০১৮

রাজশাহী ব্যুরো, সিটিজিবার্তা২৪ডটকম

কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের দফায় দফায় হামলা

রাবি ক্যাম্পাসে কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের দফায় দফায় হামলা

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মানববন্ধন পালন করতে গেলে কোটা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর দফায় দফায় হামলা করেছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

রোববার সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন শুরু করার পূর্বেই ছাত্রলীগ এ হামলা চালায়। এসময় কোটা আন্দোলনকারীদের কিল-ঘুষি ও লাথি মেরে তাদের ব্যানার ছিনিয়ে নেয় ছাত্রলীগ। এমনকি ধাওয়া করে তাড়িয়ে দেয় তারা। এরপর বেলা সাড়ে ১১টায় দ্বিতীয় দফায় লাঠি-সোঠা নিয়ে হামলা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তবে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করেছে ছাত্রলীগ।

তবে শনিবার রাতেই বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু তার ফেসবুক পেজ থেকে স্ট্যাটাস দিয়ে আন্দোলনকারীদের হুমকি দেন। তিনি ফেসবুকে লিখেন, ‘আগামীকাল (রোববার) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল ক্লাস পরীক্ষা চলবে। কোটা আন্দোলনের নামে যদি কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার চেষ্টা করে, তাহলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ তা কঠোর হস্তে প্রতিহত করবে।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল পৌনে দশটার দিকে কোটা আন্দোলনকারীরা গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বর থেকে ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমদ রুনুর নেতৃত্বে ২০-২৫ জন নেতাকর্মী গ্রন্থাগারের সামনে আসেন। সেখানে এসে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আন্দোলনকারীদের বিভিন্ন রকম গালিগালাজ করেন।

ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মিশু মানববন্ধনের ব্যানার কেড়ে নেয়। ব্যানার নিয়ে দুই দিকে দাঁড়িয়ে থাকা কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক অনন্ত আহসান ও নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আহ্বায়ক আবদুল্লাহ শুভকে আক্রমণ করেন ছাত্রলীগের সহসভাপতি মিজানুর রহমান সিনহা ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক আসাদুল্লাহ হিল গালিব।

তারা আন্দোলনকারী ওই দুজনকে এলোপাথাড়ি থাপ্পর ও কিল-ঘুষি মারতে থাকে। আর অন্যদেরকে ধাওয়া দেয় ছাত্রলীগের অন্য নেতাকর্মীরা। এসময় আন্দোলনকারীরা কেউ গ্রন্থাগারের সামনে দিয়ে, কেউ গ্রন্থাগারের পেছন দিয়ে পালিয়ে যায়।

এরপর বেলা সাড়ে এগারোটায় দ্বিতীয় দফায় লাঠি-সোটা হাতে হামলা করে ছাত্রলীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী। এসময় শহীদুল্লাহ কলা ভবনের সামনে উপস্থিত সাধারণ শিক্ষার্র্থীদের মারধর করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এসব ঘটনায় ক্যাম্পাসে থমথমে আবহাওয়া বিরাজ করছে।

হামলার শিকার নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আহ্বায়ক আবদুল্লাহ শুভ বলেন, ‘আমরা যখন মানববন্ধনে দাঁড়াতে ধরছি তখন ছাত্রলীগ নামের কিছু সন্ত্রাসী আমাদের ওপর হামলা করে। আমরা সেখান থেকে কোনো রকমভাবে প্রাণ নিয়ে পালিয়ে এসেছি। তারা আমাদের ব্যানারও কেড়ে নিয়েছে। পালিয়ে না আসলে তারা হয়তো আমাদের খুন করে ফেলতো। আমরা এখন নিরাপদ স্থানে লুকিয়ে আছি। আমাদের শারীরীক অবস্থা ভালো না, অতিদ্রুত ডাক্তারের কাছে যেতে হবে।’

তবে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন রাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া। তিনি বলেন, ‘আমরা কাউকে হামলা করিনি। আমরা এমনিতেই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলাম। এটা দেখেই আন্দোলনকারীরা ভয়ে পালিয়ে গেছে।’

এদিকে আজ আন্দোলন শুরুর আগে কয়েকজন আন্দোলনকারী নেতা ডেকে পাঠান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান। সকাল ৯টা ২০ মিনিটের দিকে রাবি কোটা আন্দোলনের আহ্বায়ক মাসুদ মোন্নাফের নেতৃত্বে প্রক্টর দপ্তরে যান ১২-১৫ জন নেতাকর্মী। এরপর ৯টা ৪০ মিনিটের দিকে প্রক্টর দপ্তরের একটি ভেতরের কক্ষে নিয়ে আন্দোলনকারীদের মধ্যে আহ্বায়ক মাসুদ মোন্নাফ ও যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদুল ইসলাম মুবিনকে নিয়ে যান প্রক্টর। সেখানে সাংবাদিকদের বের করে দিয়ে রাজশাহী মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার শামসুল আজম, মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাদাৎ হোসেন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন সহকারী প্রক্টরকে নিয়ে আলোচনা করেন তারা।

সেখান থেকে বের হয়ে মাসুদ মোন্নাফ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে অনুমতি চেয়েছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের অনুমতি না দিয়ে হুমকি দিয়েছেন। মানববন্ধনের সময় আমাদেরকে কেউ হামলা করলে তারা দায়ভার নিবে না বলে জানিয়েছেন।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘আমাদের কাছে খবর আছে, আন্দোলনের নামে একটা চক্র বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে, তাই অনুমতি দেয়া হয়নি।’

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.