চট্টগ্রাম বন্দরে ২৮ লাখেরো বেশি কনটেইনার হ্যান্ডলিং

কনটেইনার হ্যান্ডলিং বেড়েছে ১২ দশমিক ১৯ শতাংশ

রোববার, ১ জুলাই ২০১৮

সিটিজিবার্তা২৪ডটকম নিউজ ডেস্ক

চট্টগ্রাম বন্দরে ২৮ লাখেরো বেশি কনটেইনার হ্যান্ডলিং

চট্টগ্রাম বন্দর

চট্টগ্রাম: দেশের প্রধান আমাদানী-রপ্তানির সমুদ্রবন্দর ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২৮ লাখ ৮ হাজার ৫৫৪ টিইইউ’স (২০ ফুট লম্বা) কনটেইনার হ্যান্ডলিং করেছে। এর আগের অর্থবছরে যা ছিল ২৫ লাখ ৩ হাজার ৪৭১ টিইইউ’স। বেড়েছে ৩ লাখ ৫ হাজার ৮৩ টিইইউ’স, প্রবৃদ্ধি ১২ দশমিক ১৯ শতাংশ।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) মো. জাফর আলম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আইসডি, পানগাঁও, বাল্ক, বহির্নোঙর, জেটিতে খোলাপণ্য (বাল্ক) ও কনটেইনারে আনা পণ্য মিলে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে হ্যান্ডলিং করেছে ৯ কোটি ২৯ লাখ ২৩ হাজার ২২৮ মেট্রিকটন। এর আগের অর্থবছরে যা ছিল ৭ কোটি ৯৯ লাখ ৮২ হাজার ৫১৯ মেট্রিকটন। পণ্য হ্যান্ডলিং বেড়েছে ১ কোটি ২৯ লাখ ৪০ হাজার ৭০৯ মেট্রিকটন। প্রবৃদ্ধি ১৬ দশমিক ১৮ শতাংশ।

বন্দরের পরিচালক (পরিবহন) গোলাম ছরওয়ার সংবাদমাধ্যমকে জানান, বন্দর কর্তৃপক্ষের নতুন নতুন ব্যবস্থাপনা, আধুনিক হ্যান্ডলিং যন্ত্রপাতি সংগ্রহ এবং বন্দরের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্টেক হোল্ডারদের সহযোগিতায় কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ে ১২ দশমিক ১৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হয়েছে।

শতবর্ষী বাণিজ্য সংগঠন দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, সমুদ্রপথে রোদ-বৃষ্টি-ঢেউ থেকে বাঁচিয়ে নিরাপদে পণ্য পরিবহনে কনটেইনার বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। একই সঙ্গে শিল্পকারখানার কাঁচামাল আমদানি হচ্ছে বড় বড় জাহাজে। যেগুলো গভীরতা কম থাকায় চট্টগ্রাম বন্দরের জেটিতে ভিড়তে পারে না। বাধ্য হয়ে বহির্নোঙরে উত্তাল ঢেউয়ের মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে ছোট জাহাজে খালাস করে নদীপথে বিভিন্ন গন্তব্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

চট্টগ্রাম বন্দরের যে প্রবৃদ্ধি তা সন্তোষজনক উল্লেখ করে এ ব্যবসায়ী নেতা বলেন, সারা দেশে যেসব যে উন্নয়ন যজ্ঞ চলছে, আমাদের বৈদেশিক বাণিজ্য যে হারে বাড়ছে তা সামাল দিতে হলে নতুন নতুন ইয়ার্ড, জেটি, টার্মিনালের পাশাপাশি বহুল প্রত্যাশিত বে টার্মিনালের বিকল্প নেই।

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.