দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মূল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

Thursday, 30 Nov 2017

Ctgbarta24.com

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বহুল প্রতীক্ষিত পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মূল নির্মাণ কাজের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ প্রবেশ করলো পরমাণু বিশ্বে। জাতি হিসেবে এটা আমাদের জন্য গৌরব ও আনন্দের। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) রূপপুরে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মূল নির্মাণ কাজের উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন, এ স্বপ্ন শুরু হয়েছিলো ১৯৬১ সালে পাকিস্তান আমলে। জমি অধিগ্রহণসহ বেশি কিছু কাজ সম্পন্ন হলেও পাকিস্তান সরকার হঠাৎ করে প্রকল্পটি পশ্চিম পাকিস্তানে সরিয়ে নিয়ে যায়। স্বাধীনতার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুতকেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগ নেন। তিনি নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগের নির্দেশ দেন। এ প্রকল্পে প্রকল্প পরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন ড. ওয়াজেদ মিয়া। বঙ্গবন্ধু মাঝে-মধ্যে তাড়াতাড়ি কাজ শুরু করা য়ায় কী-না এ নিয়ে তাকে বকাঝকা করতেন।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকরা জাতির জনককে হত্যার পর এ কাজ আর এগোয়নি। পারমাণবিক বিদ্যুতকেন্দ্র স্থাপন জটিল এবং দীর্ঘ প্রক্রিয়া। ২১ বছর যারা ক্ষমতায় ছিলেন তারা এ উদ্যোগ নেয়নি। ১৯৯৬ সালে আমরা ক্ষমতায় আসার পরে এ প্রকল্প বাস্তবায়নে কার্যক্রম হাতে নিই।

২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় আসার পর এ প্রকল্প বাস্তবায়নের কোনো উদ্যোগ নেয়নি। ২০০৯ সালে আমরা আবার ক্ষমতায় এসে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেই। এসময় বন্ধুরাষ্ট্র রাশিয়া প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুতকেন্দ্র নির্মাণের ক্ষেত্রে নিরাপত্তার ওপর সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা’র (আইএইএ) গাইডলাইন অক্ষরে-অক্ষরে অনুসরণ করছি। আইএইএ সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষায় প্রতিটি স্তরের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। যেকোনো দুর্যোগে আমাদের বিদ্যুতকেন্দ্রে কোনো প্রকার দুর্ঘটনা যাতে না ঘটে সেটি খেয়াল রেখা এ প্লান্টের ডিজাইন করা হয়েছে। পরিবেশ ও মানুষের যাতে ক্ষতি না হয়, তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image