প্রায়োরিটি লেইন বনাম আমাদের যানজট

সিটিজি বার্তা২৪ ডটকম

বৃহস্পতিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৬

13459478_10209490610725246_162211564_n_1

সানি সানোয়ার হোসেন:  গুলশান থেকে একটি কাজ শেষ করে আবার অফিসেই ফিরছিলাম। এমন সময় ফোনের মাধ্যমে জরুরী একটি খবর আসল “স্যার, মাজার রোডের দিকে সেই চালানটা আজ ডেলিভারি হবে। এক ঘন্টার মধ্যে গেলে মালামালসহ চার জনকে ধরতে পারবেন……..”

হাতে সময় খুব কম, গত কয়েকমাস ধরেই এই খবরটার অপেক্ষায় ছিলাম। খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি ক্যাচ মিস হয়ে গেলে নিশ্চিতভাবে আগামী তিন মাস মন খারাপ থাকবে  .. তাই, উড়াল দিতে ইচ্ছে হচ্ছিল, দুর্ভাগ্য, কিছুদূর যাওয়ার পর মহাখালীতে আটকে গেলাম।

একটি লোকাল বাস তার পশ্চাৎদেশ বাঁকা করে দাঁড়িয়ে আছে। এরই মধ্যে অনেক জ্যাম সৃষ্টি হয়ে গেছে। মনে হচ্ছে ঘর থেকে লোকজনকে ডেকে এনে গাড়িতে তুলবে!
আমাদের গাড়ির রং দেখে বুঝা মুশকিল এটা পুলিশের গাড়ি, তাই কোন সমীহই পেলাম না!

এক সহকর্মী গাড়ি থেকে নেমে গিয়ে বাসের হেল্পারকে কি যেন একটা বলল…….. তৎক্ষণাৎ সে একটা বোকার মত হাসি দিয়ে ড্রাইভারকে চেচিয়ে বলে উঠল, “ওস্তাদ, পিছনে প্লাষ্টিক না…….. লোহা… লোহা…….. তারাতারি সাইড দ্যান।”

আপদ কেঁটে গেল, ড্রাইভার বাসের পশ্চাৎদেশ সোজা করলো……  আমরাও রওয়ানা দিলাম।

কিন্তু রেইল লাইনে গিয়ে আবার সিগন্যালে আটকে গেলাম,এখন উপায়? রেইল লাইনের সিগন্যাল তো আর পুলিশ বুঝে না।.ওর কাছে তো সবই প্লাষ্টিক…. যেহেতু সে নিজেই লোহা।

শের-ই-বাংলা নগর পর্যন্ত যেতে যেতে ৩৫ মিনিট সময় লেগে গেল, কল্যানপুর পৌছালাম ৫০ মিনিটে, আর গন্তব্যে পৌছালাম মাল ডেলিভারির ১০মিনিট পর। হতাশার চাদর নেমে আসল আমার পুরো টিমের উপর, মারাত্মক মনোকষ্ট নিয়ে প্রায় ৩০মিনিট দাঁড়িয়ে রইলাম মাজার রোডের একটি চা’য়ের দোকানের সামনে চালানটি কেন মিস করলাম মনে মনে তার ১০১টি কারণ খুঁজতে লাগলাম।

যদিও এরকম হরহামেসাই হয়। কিন্তু এটা অতি আকাঙ্ক্ষিত একটি এসাইনমেন্ট ছিল,….  তাই  আফসোসটা একটু বেশিই অনুভব করছিলাম।

ট্রাফিক জ্যামের কারণে জিনিসটা মিস হয়ে গেল।

নিত্যদিনের ট্রাফিম জ্যাম ঠেলে সবাই যার যার গন্তব্যে যায়। জ্যামের কারণে অনেকেরই হয়তো অনেক কিছু মিস হয়, কিন্তু আমাদের সেদিনের মিসটি ছিল ১৭কোটি মানুষের মিস।অস্ত্রের যে চালানটি সেদিন মিস হলো সেগুলো দিয়ে যে কেউ মারা যেতে পাড়ে, যে কেউ।

একইভাবে পুলিশের দৈনন্দিন কর্মযজ্ঞের অংশ হিসেবে মাদক, বিস্ফোরক, পেশাদার ডাকাত-ছিনতাইকারী-চোর, জঙ্গি……… এরকম হাজারও রকমের চালান বা আসামি ধরতে ব্যর্থ হয় ট্রাফিক জ্যামের কারণে, এটা পুলিশের না, এটা দেশের ব্যর্থতা। তাই, পুলিশ হেরে গেলে জিতে যায় অমানুষ।

নিয়মিতভাবে এরকম অনেক কিছুই মিস হচ্ছে.কিছু মেনে নেয়া যায়, কিছু মেনে নেয়া যায় না।

যেমন, তিন ধরনের যানবাহন রয়েছে যা সঠিক সময় সঠিক জায়গায় না পৌছালে অনেক বড় কিছু মিস হয়ে যায়:

১. মুমূর্ষু রুগীর অ্যাম্বুলেন্স

২. ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি এবং

৩. দায়িত্বরত পুলিশের গাড়ি

এই তিন ধরণের গাড়ি মানুষের জীবনের  সর্বোচ্চ গুরুতর প্রয়োজন মেটায়…

পৃথিবীর অনেক দেশ এই তিন ধরনের গাড়ির যাতায়াত নিরবচ্ছিন্ন রাখার জন্য আইনগতভাবে রাস্তায় অগ্রাধিকারের ব্যবস্থা রেখেছে।……. কেউ অবহেলা, অমান্য বা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করলে তাকে কঠিন শাস্তি পেতে হয়।

ভার্জিনিয়া-ওয়াশিংটন ডিসি’তে কখনও কখনও দেখেছি পাশ দিয়ে চলাচলকারী অন্যান্য গাড়ি এই তিন ধরণের গাড়ি দেখলে অনেক সময় ইঞ্জিন বন্ধ করেও দাঁড়িয়ে যায়।

রাস্তার প্রশস্ততার উপর ভিত্তি করে কোন কোন দেশে এই গাড়িগুলোর জন্য আলাদা লেইন রিজার্ভ রাখতেও দেখা যায়, যেমন: প্রাগ, চেকোস্লোভাকিয়া।

অনেক দেশে স্কুল পরিবহনগুলোর ক্ষেত্রেও রাস্তায় চলাচলে বিশেষ মর্যাদা দেয়ার প্রতিবিধান রয়েছে।

আশা করি খুব শীঘ্রই এদেশেও আমরা এসব সেবামূলক পরিবহনের জন্য #Priority_Lane. দেখবো।

আসুন, যে পর্যন্ত না আমরা সেটা দেখি সে পর্যন্ত এই চার প্রকার গাড়িকে আমরা নিজেরাই Priority দেই….

কেননা, কে বলবে কোন একদিন হয়তো- এই অ্যাম্বুলেন্সের মুমূর্ষু রুগীটি আপনি কিংবা আপনার কোন প্রিয়জন হতে পারে।

  • এই ফায়ার সার্ভিসের গাড়িটি আপনারই বাসায় যেতে পারে

  • এই পুলিশের গাড়িটি আপনাকে যে অস্ত্রে মারা হবে সেটাই  উদ্ধারে যাচ্ছে

মানবতা ‘নগর ভবন’-এ পরে ঢুকে.আগে ঢুকে মানুষের মনে।কারণ মানবিকতা থাকে মানুষের অভ্যাসে, বোধে এবং ত্যাগে।

লিখেছেন: সানোয়ার হোসেন সানি (এডিসি ডিএমপি, ডিবি) 

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.