বিপিএলের ব্যাটে-বলে লড়াই শুরু আজ

 

প্রকাশিত: সকাল ৬:৪২

CHITTAGONG-VIKINGS

মাহাবুবুল করিম ।।

সিটিজিবার্তা২৪ডটকম ঃ আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরেই পর্দা উঠতে যাচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) তৃতীয় আসরের ব্যাট-বলে লড়াই।  আজ প্রথম দিনে দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

উদ্বোধনী ম্যাচে দুপুর দুইটায় মুখোমুখি হবে রংপুর রাইডার্স ও চিটাগাং ভাইকিংস। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় লড়বে ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

রংপুর রাইডার্স ও চিটাগাং ভাইকিংস :  বিপিএল তৃতীয় আসরের উদ্বোধনী ম্যাচটি মাঠে গড়াচ্ছে  রংপুর-চিটাগাংয়ের লড়াইয়ের মাধ্যমে। দুই বন্ধু তামিম ও সাকিব একে অপরের বিপক্ষে মাঠে নামবেন আজ দুপুরে। তামিম ইকবাল নিজ শহর চিটাগাং ভাইকিংসের অধিনায়ক। আর সাকিব রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক। জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চায় উভয় দল। প্রথম ম্যাচে অংশ নিতে গতোকাল শনিবার রাতেই ঢাকায় চলে আসার কথা সাকিবের। রংপুরের দলীয় সূত্রে এমনটা জানা গেছে।

Rongpur-Ryders

রংপুরে অভিজ্ঞ দুই বিদেশি ক্রিকেটার মিসবাহ-উল-হক, ড্যারেন স্যামি ছাড়াও আছেন মোহাম্মদ নবী, ওয়াহাব রিয়াজ, থিসারা পেরেরার মতো ক্রিকেটার। যদিও প্রথম ম্যাচে সব বিদেশি ক্রিকেটারকে পাচ্ছে না রংপুর। এছাড়া রংপুরের জন্য দুর্ভাগ্য হয়ে এসেছে সৌম্যর ইনজুরি। দেশি ক্যাটাগরিতেও খুব বেশি তারকা নেই দলটির। তবে মিঠুন, জহিরুল,রাহি কিংবা তরুণ রাসেল আল  মামুনের মতো ক্রিকেটাররা সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে রংপুরকে অনেক পথ নিয়ে যেতে পারেন।

গতোকাল শনিবার রংপুর রাইডার্সের প্রতিনিধি হয়ে কথা বলেছেন মিসবাহ-উল-হক। অনুশীলন শুরুর আগে তিনি বলেন,‘আমরা খুব ভালো একটি দল। আশা করছি সবাই মিলে ভালো একটি কম্বিনেশন তৈরি করে পারফর্ম করব। এটাই মূল লক্ষ্য। দল হিসেবে ও খেলোয়াড় হিসেবে প্রমাণ করতে হবে আমরাই সেরা।’

এদিকে স্থানীয় ক্রিকেটার বিচারে রংপুরের চেয়ে অনেক এগিয়ে চিটাগাং ভাইকিংস। তামিম, নাফিস, এনামুল, তাসকিন, জিয়াউর, নাঈম ও এনামুল জুনিয়রদের মতো স্থানীয় ক্রিকেটাররা খেলবেন চট্টগ্রামের হয়ে। বিদেশি ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ আমির, সাঈদ আজমল, জীবন মেন্ডিস ও চিগুম্বুরার মতো তারকা খেলোয়াড় রয়েছেন। বিপিএলে অংশ নিতে সবাই চলে এসেছেন ঢাকায়।

দলের পেস অলরাউন্ডার জিয়াউর রহমানও নিজেদের এগিয়ে রাখলেন সংবাদ সম্মেলনে। তিনি বলেন,‘আমাদের প্রস্তুতি অনেক ভালো। বিদেশি ক্রিকেটাররা সবাই অনুশীলনে ছিলেন না। এখানে কোনও সমস্যা হবে না। আর আমরা তো অনেক আগে থেকেই অনুশীলন করছি। আশা করি প্রথম ম্যাচে আমরা জয় দিয়ে শুরু করতে পারব।’

Dhaka-dynamites

ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স : বিপিএলের তৃতীয় আসরের দ্বিতীয় ম্যাচে সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় মাঠে নামবে ঢাকা ডায়নামাইটস। তাদের প্রথম প্রতিপক্ষ মাশরাফির কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। প্রথম দুই বিপিএলে রাজধানীর দল ছিল ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। এই বিপিএলে তারা নেই। অন্যদিকে কুমিল্লাভিত্তিক দল এবার প্রথম বিপিএলে নাম লিখিয়েছে। প্রথম ম্যাচে মাঠে নামার আগে খুব বেশি সময় অনুশীলনের সুযোগ পায়নি কোনও দল। এ প্রসঙ্গ তুলতে শনিবার প্রথমবার স্কোয়াড নিয়ে অনুশীলনে নামার আগে সাঙ্গাকারা বলেন,‘সব দলের খেলোয়াড়রা খেলার মধ্যে ছিলেন। ফলে এটা কোনও সমস্যা হবে বলে মনে করি না।’

অধিনায়ক হিসেবে সাঙ্গাকারার আশা দলের সবাই ভালো ক্রিকেট খেলবে। মাঠে সর্বোচ্চ সততা বজায় রাখবে। দলের পরিবেশটাও ভালো থাকবে।

ঢাকার ১৮ জনের স্কোয়াডে সাতজন বিদেশি এবং ১১ জন স্থানীয় খেলোয়াড়কে পাচ্ছেন সাঙ্গাকারা। বিদেশিদের মধ্যে ঢাকার চোখ ছিল পাকিস্তানি তারকাদের দিকে। ইতোমধ্যে আজমল  ও আমির চলে এসেছে। শনিবার অনুশীলনও করেছেন তারা।

যদিও বিপিএলে ঢাকার অন্যতম ভরসা কুমার সাঙ্গাকারা নিজেই।এ ছাড়া আইকন প্লেয়ার নাসির হোসেন, বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান; এই দুই স্থানীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে ঢাকার সাফল্যের রূপকার হতে পারেন ডাচ তারকা রায়ান টেন ডেসকাট। এ ছাড়া শামসুর রহমান শুভ, ইরফান শুক্কুর, মোসাদ্দেক হোসনদের মতো তরুণরাও ঢাকাকে নিয়ে যেতে পারেন অনেকটা পথ।

শনিবার ঢাকার জন্য দুঃসংবাদ হয়ে এসেছে ম্যালকম ওয়ারলারের ইনজুরি। অনুশীলনের সময় ব্যাটিং করতে গিয়ে মাথায় আঘাত পেয়েছেন তিনি।

comilla-victorians

ঢাকার মতো কুমিল্লার সাফল্য-ব্যর্থতাও নির্ভর করছে স্থানীয় ও বিদেশি ক্রিকেটারদের যথাযথ সমন্বয়ের ওপর। জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বে দেশি-বিদেশি মিলিয়ে যথেষ্ট শক্তিশালী স্কোয়াড গড়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ব্যাটিংয়ের তুলনায় কুমিল্লার বোলিং লাইন বেশি সমীহ জাগানিয়া। স্কোয়াডের চেহারা অন্তত তাই বলছে। কুমিল্লার বোলিং আক্রমণের সেরা অস্ত্র সুনিল নারাইন। তার সঙ্গে আছেন সানজামুল ইসলামও। অধিনায়ক মাশরাফি তো আছেনই। ইংল্যান্ডের সঙ্গে সিরিজ থাকায় নভেম্বরে কুমিল্লা পাকিস্তানি তারকাদের পাচ্ছে না। শনিবার পর্যন্ত ঢাকা এসে পৌঁছাননি নুয়ান কুলাসেকারা ও লাহিরু থিরিমান্নেও। ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্দ্রে রাসেল ঠিক কবে আসবেন তা জানাতে পারেননি কুমিল্লার মিডিয়া ম্যানেজার খান নয়ন। পুরো শক্তির স্কোয়াড না পেলেও মাশরাফির দল গোছানো নিয়ে খুব একটা ঝামেলা হওয়ার কথা নয়। সব মিলিয়ে মাশরাফি ও সাঙ্গাকারা লড়াইটা ভালোই উত্তাপ ছড়ানোর কথা। যেমনটা দুই বন্ধু সাকিব-তামিমের হবে!

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.