এই মাত্র:

বিশ্বকাপ যৌথ আয়োজনের পরিকল্পনায় ৩ দেশ

Thursday,05 Oct 2017

Ctgbarta24.com

২০৩০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজনের পরিকল্পনা করেছে আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ে ও প্যারাগুয়ে।

বুধবার (৪ অক্টোবর) বুয়েন্স আয়ার্সে এক অনুষ্ঠানে তিন দেশের প্রেসিডেন্ট একসঙ্গে উপস্থিত থেকে এই ঘোষণা দেন। খবর- বিবিসির।

খবরে বলা হয়, ২০৩০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ হওয়ার লড়াই শুরুর এখনও অনেক দেরি আছে। তবে আগেভাগেই সেই প্রতিযোগিতায় নাম লিখিয়েছে লাতিন আমেরিকার তিন ফুটবল পরাশক্তি। এই আসরের মাধ্যমেই বিশ্বকাপ ফুটবলের শতবর্ষ পূরণ হতে যাচ্ছে বলেই এত আগে থেকেই শুরু হয়েছে এই তোড়জোড়।

বুধবার প্যারাগুয়ের প্রেসিডেন্ট হোরাসিও কার্টেস বলেন, ২০৩০ সালের বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজন করার পরিকল্পনার প্রস্তুতিমূলক প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে।’

তিনি আরও বলেন, অন্য অনেক দেশই এই ঐতিহাসিক বিশ্বকাপের আয়োজক হতে চাইবে। কিন্তু প্রথম বিশ্বকাপের আয়োজক হিসেবে উরুগুয়ে এই আয়োজনের স্বাগতিকতা দাবি করতেই পারে। আমরাও উরুগুয়ের সঙ্গেই আছি।’

২০৩০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের বিশেষত্ব হলো— এই আসরেই শতবর্ষে পা রাখবে ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজন। ১৯৩০ সালে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয়েছিল ফুটবলের এই বৈশ্বিক মহাযজ্ঞ। সেই যাত্রা শুরু হয়েছিল উরুগুয়েতেই। পরে ১৯৭৮ সালে বিশ্বকাপ ফুটবলের স্বাগতিকতায় ছিল আর্জেন্টিনা। তবে প্যারাগুয়ে এখনও কোনও বিশ্বকাপ আয়োজন করেনি।

প্রথম বিশ্বকাপের আয়োজন উগুরুয়ে সে বছর চ্যাম্পিয়নও হয়েছিল। পরে ১৯৫০ সালেও তারা জিতে নিয়েছিল বিশ্বসেরার খেতাব। দিনে দিনে উরুগুয়ে সেই জৌলুস হারিয়েছে। অন্যদিকে, ১৯৭৮ ও ১৯৮৬তে বিশ্বকাপ জেতা আর্জেন্টিনাও শিরোপা-খরায় ভুগছে তিন দশক হলো। আবার, প্যারাগুয়ে সবসময়ই শক্তিশালী দলের মর্যাদা পেয়ে এলেও সেরাদের সেরার কাতারে ছিল না কখনই। লাতিনের এই তিন দেশের ফুটবল ক্রেজ নিয়ে প্রশ্ন না থাকলেও এককভাবে বিশ্বকাপের আয়োজনের অবস্থায় নেই কোনও দেশই। সে কারণেই তিন দেশ যৌথভাবে ২০৩০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image