বৃহস্পতিবার আদালতে বাকি বক্তব্য দেবেন খালেদা জিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক  ।  ৭ ডিসেম্বর ২০১৬ ১৯:৫৫

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আগামীকাল বৃহস্পতিবার আদালতে যাবেন। তিনি আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থন করে তাঁর বাকি বক্তব্য উপস্থাপন করবেন।

সংবাদমাধ্যমের কাছে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তাঁর আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির দুটি মামলা ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আদালতে বিচারাধীন। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ অব্যাহত রয়েছে। পুরান ঢাকার বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসাসংলগ্ন মাঠে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত-৩-এর অস্থায়ী এজলাসে এ মামলার বিচার চলছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৪২ ধারায় আত্মপক্ষ সমর্থনের পর বিএনপির চেয়ারপারসন আদালতে বক্তব্য উপস্থাপন শুরু করেন। তবে আত্মপক্ষ সমর্থনের বক্তব্য শেষ না হওয়ায় আদালত ৮ ডিসেম্বর পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

খালেদা জিয়া আদালতকে বলেন, তিনি লিখিত কোনো বক্তব্য দেবেন না। নিজেই আদালতে বক্তব্য দেবেন। এ পর্যায়ে আদালত বলেন, খালেদা জিয়া যতক্ষণ ইচ্ছে বলতে পারেন, এর জন্য সময় বেঁধে দেওয়া হবে না।

খালেদা জিয়া প্রায় ২০ মিনিট বক্তব্য উপস্থাপন করে বলেন, ‘জাতি আজ লাঞ্ছিত, নির্যাতিত। সমগ্র বাংলাদেশকে আজ কারাগারে পরিণত করা হয়েছে। এখন দেশের সবখানে অস্থিরতা। মানুষ আজ অনিরাপত্তাবোধ করছে।’

বিএনপির চেয়ারপার্সন আরও বলেন, মিথ্যা ও সাজানো মামলায় তাঁর দলের ৪ লাখের বেশি নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে ২৫ হাজারের মতো মামলা দেওয়া হয়েছে। নেতা-কর্মীরা নির্যাতন ও হয়রানির শিকার হচ্ছেন। গুম, খুন, অপহরণ ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বিরোধী দলের অসংখ্য নেতা-কর্মী। দেশে এখন সংবিধান ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বড় বেশি বলা হয়।

তিনি বলেন, ‘কোথায় সাংবিধানিক শাসন? কোথায় নাগরিকদের সেই অধিকার?’

মামলার অপর আসামিরা হলেন খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী (পলাতক), জিয়াউল ইসলাম ও মনিরুল ইসলাম খান।

২০১০ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে মামলা করে দুদক। এতে ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগ আনা হয়। ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি চারজনের বিরুদ্ধেই অভিযোগপত্র দেয় দুদক। ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ অভিযোগ গঠন করা হয়।

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.