ব্যর্থদের সফলতম গুরুঃ জুডিসিয়ারির রবার্ট ব্রুস!

Thursday,04 Jan 2018

Ctgbarta24.com

” একবার না পারিলে দেখ শতবার”- এই প্রবাদ বাক্যটির যে মানুষটি সকলের সামনে জীবন্ত করে তুলেছেন তিনি হলেন রবার্ট ব্রুস। তিনি ছিলেন স্কটল্যান্ডের রাজা। প্রতিপক্ষের কাছে রাজ্য হারিয়ে পরপর ছয়বার হারানো রাজ্য ফিরে পাওয়ার যুদ্ধে অবতীর্ণ হন। ছয়বারই তিনি পরাজিত হন। শেষমেষ জীবন বাঁচাতে তিনি এক গুহায় আশ্রয় গ্রহণ করেন এবং হারানো রাজ্য ফিরে পাওয়ার আশা তিনি ছেড়ে দেন। কিন্তু সেখানে দেখতে পান একটি মাকড়সা জাল বুনতে গিয়ে ছয়বার ব্যর্থ হয়ে সপ্তম বারে সফল হন। মাকড়সার সাফল্য দেখে তিনি পুনরায় রাজ্য উদ্ধারে মনস্থির করেন। অবশেষে ১৩১৪ সালে বানুকবার্ন নদীর তীরবর্তী বানুকবার্নের যুদ্ধে প্রায় ২০০০০ ( বিশ হাজার) ইংরেজ সৈন্যের বিপরীতে মাত্র ৭০০০( সাত হাজার) সৈন্য নিয়ে প্রাণপণ লড়াই করে রবার্ট ব্রুস রাজ্য উদ্ধারের যুদ্ধে বৃটেনের বিরুদ্ধে জয়লাভ করেন। দিনটি ছিল রবিবার। রবার্ট ব্রুস এর উদাহরণ বহুদিন ধরে আমাদের অনুপ্রেরণা জুগিয়ে চলেছে, ভবিষ্যতেও অনুপ্রেরণা জোগাবে। তিনিই আমাদের শিখিয়েছিলেন কোন কাজে একবারে সফলতা না আসলে আশাহত না হয়ে বারবার প্রচেষ্টা করতে হবে।

এবার আর এক জীবন্ত গল্পের কথা বলি। যিনি সম্ভবত স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে একই চাকরির জন্য পরপর ছয়বারের মত ভাইভা বোর্ডে পৌঁছেও সফলতার মুখ দেখেননি; শত আশা, শত স্বপ্ন, শত ব্যথা, শত হতাশা বুকে নিয়ে অনেক সাধনার পর অবশেষে ৭ম বারের মত জুডিসিয়ারির ভাইভাতে উত্তীর্ণ হয়ে সহকারী জজ/ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত হন। গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং তারিখে ১১শ জুডিসিয়ারির পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশিত হয়। দিনটিও ছিল রবিবার। কাকতালীয় হোক আর যাই হোক, রবার্ট ব্রুস যেমন ৭ম বারে সফল হন তিনিও একাধারে ৭ম বারে সফল হন। বরং তিনি ৭ম না, বলতে গেলে (প্রিলি+রিটেন+ভাইভা)=৩*৭= ২১ তম বারে সফল হন। কারণ প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় প্রত্যকটা ধাপ ছিল ছিটকে পড়ার মত। প্রতিটি ধাপ পেরিয়ে একে একে ৫ম, ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম ও ১১শ জুডিসিয়ারিতে ভাইভা পর্যন্ত পৌঁছান। শেষ পর্যন্ত ৭ম বারে সফলতার মুখ দেখেন। তিনি হলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ১৪ তম ব্যাচের ছাত্র Mohammad Belal. তাঁকে এ যুগের তথা বাংলাদেশের জুডিসিয়ারির রবার্ট ব্রুস বললেও অত্যুক্তি হবে না মোটেও।

তিনি জুডিসিয়ারিতে মোট ৭ম বার এবং বিসিএস তেও তিনি কয়েকবার ভাইভা দেন। অবশেষে ৩৫তম বিসিএস এ নন-ক্যাডার হিসেবেও চূড়ান্তভাবে সুপারিশপ্রাপ্ত হন। আর জুডিসিয়ারিতে কিংবদন্তিতুল্য হিসেবে থাকবেন যুগ যুগ ধরে। যারা একবার, দুইবার, বহুবার পরীক্ষা দিয়ে হতাশ হন তাদের জন্য বয়সসীমার ভিতর আশার মশাল হয়ে থাকবেন তিনি। আর হাজার হাজার ব্যর্থদের সফলতম গুরু তাঁকেই বলা যাবে, তাঁকেই বলা যাবে জুডিসিয়ারির রবার্ট ব্রুস।

একাগ্রতা থাকলে, প্রচেষ্টা ও অধ্যবসায় করলে আজও যে সফলতা অর্জন সম্ভব তা আরেকবার প্রমাণ করলেন বেলাল ভাই। তিনি ব্যর্থদের সফলতার মূর্ত প্রতীক, অপরাজিত বিজয়ী সৈনিক। তিনিও ছিলেন বাবার বড় ছেলে। সারাদেশে বড় ছেলের রোমান্টিক নাটকে নায়িকার কান্না দেখে আর বড় ছেলের প্রেমের ব্যর্থতা দেখে আবেগে ভেসে গেলেও এমন বড় ছেলের মত ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প নিয়ে কেন লেখা যাবে না একটা গল্প, একটা উপন্যাস, একটা নাটক? যা প্রেরণা জোগাবে অনন্তকাল ধরে।

লেখক: নুরুল হক
১০ম বিজেএস এ সহকারী জজ হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্ত

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.