ভ্যালেন্টাইন’স ডে নিয়ে অদ্ভুতুড়ে যত তথ্য

মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

সিটিজিবার্তা২৪ডটকম ।।
ভ্যালেন্টাইন'স ডে নিয়ে অদ্ভুতুড়ে যত তথ্য
ভালবাসা দিবসকে ঘিরে আছে নানান রহস্য, আছে অদ্ভুত সব রটনা। তরুণ-তরুণীরা বিভিন্নভাবে পালন করেন দিনটি। আসুন জেনে নেই আপনার প্রিয় এই দিনটি সম্পর্কে অদ্ভুতুড়ে কিছু তথ্য।

১। শেক্সপিয়ারের রোমিও-জুলিয়েটের কথা জানেন না এমন কোন মানুষ নিশ্চই নেই! জুলিয়েট লাখো কিশোর-তরূণ প্রেমিক হৃদয়ের কল্পনার অপ্সরি। শুধু কল্পনা করেই ক্ষান্ত থাকেন না তারা। প্রতি ভ্যালেন্টাইন’স ডে তে ইতালির ভেরোনা শহরে জুলিয়েটের ঠিকানায় যায় হাজারেরও অধিক চিঠি।

২। প্রতি বছর ভ্যালেন্টাইন’স ডে তে ২ লক্ষ ২০ হাজারেরও বেশী বিয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়।৩। সারা পৃথিবীতে যত ভ্যালেন্টাইন’স ডেতে গিফট বিক্রী হয় তাঁর ৮৫ ভাগ কেনে মেয়েরাই !

৪। ১৮৯ মিলিয়ন গোলাপের তোড়া বিক্রী হয় প্রতি বছর এই দিনে।
৫। সব চেয়ে বেশী ভ্যালেন্টাইন’স ডে’র উপহার পান শিক্ষকরা। কারণ তারা একইসাথে ছাত্র-ছাত্রী, তাদের অভিভাবক, বন্ধু-বান্ধব, সহকর্মী এবং প্রিয়জনের কাছ থেকে শুভেচ্ছা বার্তা পান।
৬। ১৫% আমেরিকান নারীরা নিজেরাই নিজেদের ভ্যালেন্টাইন’স ডে’র কার্ড পাঠান।
৭। লাল গোলাপ ভালোবাসা, বিশ্বাস, প্রেমের প্রতীক। প্রিয়জনকে একটা লাল গোলাপ দিতেই হবে ভ্যালেন্টাইন’স ডে তে। লাল গোলাপের এই জনপ্রিয়তার উৎস রোমান পূরাণ। রোমান প্রেমের দেবী ভেনাসের প্রিয় ফুল এটি।
৮। ভালোবাসা দিবসে শুধু আমেরিকাতেই ১ বিলিয়ন ডলারের বেশী চকোলেট বিক্রী হয়।

৯। ১৫৩৭ সালে ইংল্যান্ডের রাজা সপ্তম হেনরি প্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে ১৪ ফেব্রুয়ারিকে ভ্যালেন্টাইন’স ডে হিসেবে ঘোষণা করেন।১০। ৩৫ মিলিয়নেরও বেশী হৃদয় আকৃতির চকোলেট বক্স বিক্রী হবে এই বছর ভালোবাসার মানুষকে উপহার দেওয়ার জন্য।

১১। লাল গোলাপের ক্রেতাদের মধ্যে ছেলেরাই এগিয়ে। ৭৩% গোলাপ ক্রেতা ছেলেরা, যেখানে মাত্র ২৭ শতাংশ মেয়েরা গোলাপকে বেছে নেয় উপহার হিসেবে।১২। ফিনল্যান্ডে ১৪ ফেব্রুয়ারি বন্ধুরা সবাই মিলে উৎযাপন করে। তাদের কাছে ভ্যালেন্টাইন’স ডে মানে বন্ধুত্ব দিবস। কোন বিশেষ একজনের বদলে বন্ধুদের সবার সাথে দিনটি পালন করে তারা।

১৩। মধ্যযুগে ‘X’ বর্ণটিকে মনে করা হত চুম্বনের প্রতিশব্দ। যারা প্রিয়জনকে লেখা চিঠিতে নিজের নাম লিখতে চাইতেন না তারা এই বর্ণটি নামের বদলে ব্যবহার করতেন।

১৪। মধ্যযুগের আরেক অদ্ভুত নিয়ম ছিল। তখন তরুণ তরুণীরা নিজেদের ভ্যালেন্টাইন কে হতে পারে জানার জন্য বড় একটি পাত্র থেকে যে কোন একটি নাম নির্বাচন করত। নিয়ম ছিল, ১ সপ্তাহ পর্যন্ত সেই নাম জামার আস্তিনে বা হাতায় লিখে পরে থাকতে হবে!১৫। এক সময় মেয়েরা এই দিনে অদ্ভুৎ সব খাবার যেমন সস/কেচাপ দিয়ে প্যানকেক খেত যাতে রাতে স্বপ্নে তারা তাদের ভ্যালেন্টাইনকে দেখতে পায়।

১৬। ভিক্টোরিয়ান সময়ে ভ্যালেন্টাইন’স ডেতে কার্ড স্বাক্ষর করাকে অশুভ মনে করা হত!
১৭। পশ্চিমা বিশ্বে যেসব তরুণ-তরুণীর প্রেমিক/প্রেমিকা নেই তারা SAD অর্থাৎ Singles Awareness Day পালন করেন!

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.