যে কারণে নৌকার টিকেট নিশ্চিত হয়েছে ১২ তরুণ প্রার্থীর

আগাম নির্বাচনের সম্ভাবনা

প্রকাশ: ২:০৩:২০১৮ শুক্রবার   সময়: ১১:২৮ মিনিট

যে কারণে নৌকার টিকেট নিশ্চিত হয়েছে ১২ তরুণ প্রার্থীর

নৌকার টিকেট নিশ্চিত হয়েছে ১২ তরুণ প্রার্থীর

বিশেষ প্রতিবেদকঃ আগামী সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থী তালিকার বেশ বড় একটা অংশে থাকবে তরুণদের নাম। আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নতুন মুখগুলোর বেশির ভাগই সাবেক ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও বর্তমান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগ-সমর্থিত বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতারাও রয়েছেন এই দলে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এলাকায় মাঠপর্যায়ে তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

এদিকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত কয়েকটি তালিকা হয়েছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের। এক্ষেত্রে তরুণদের আলাদাভাবে তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে সেই তালিকার ১২ জন তরুণ প্রার্থী নির্বাচনের আগে কোনো ধরণের দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী কাজে লিপ্ত না থাকলে মনোনয়ন নিশ্চিতভাবেই পাচ্ছেন। দলের হাই কমান্ডের পক্ষ থেকে সময় মতো তাদের সবুজ সংকেত দেয়া হবে বলেও জানিয়েছে সূত্র।

যে ১২ জনের মনোনয়ন এখন পর্যন্ত নিশ্চিত রয়েছে, কেন তাদেরকেই বেছে নেয়া হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে সূত্রটি জানিয়েছে, বর্তমান এমপির বিরুদ্ধে সীমাহীন দুর্নীতি, সাধারণ মানুষের ওপর তার আত্মীয়, পরিবার পরিজনের অত্যাচার এবং দলের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি থেকে শুরু করে নিজ স্বার্থ রক্ষায় দলে জামায়াত-বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতার অভিযোগ রয়েছে তাদের জায়গায় নতুনদের মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে।

১২ জনের মধ্যে যারা মনোনায়ন পাচ্ছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সিলেট-১ আসনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহউদ্দিন সিরাজ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম (শরীয়তপুর-২), সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল (নেত্রকোনা-৩), কক্সবাজার ৩ আসনে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী (চাঁদপুর-৩), সাতক্ষীরা ২ (সদর) আসনে ব্যবসায়ী নেতা এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সদস্য ড. কাজী এরতেজা হাসান, মাগুরা-১ আসনে ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহকারী একান্ত সচিব সাইফুজ্জামান শিখর, গাইবান্ধার-৫ আসনে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ (বাগেরহাট-৪), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ সোহেল রানা টিপু (রাজবাড়ী-২), নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি এ এইচ এম মাসুদ দুলাল, ঝালকাঠি -১ আসনে ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মনিরুজ্জামান মনির।

এসব নেতা নির্বাচন সামনে রেখে অনেক দিন আগে থেকে এলাকায় যাওয়া-আসা করছেন। বিভিন্ন উৎসবকে কেন্দ্র করে তাদের জনসংযোগ বেড়েছে। রাজধানী বা অন্যান্য শহরে বসবাসরত এসব নেতা একটু সময়-সুযোগ পেলেই ছুটে যাচ্ছেন নির্বাচনী এলাকায়। তারা দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি নিয়মিত এলাকার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। রাজনৈতিক কর্মসূচির পাশাপাশি যোগ দিচ্ছেন সামাজিক অনুষ্ঠানে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ফারুক খান সিটিজিবার্তা২৪ডটকম কে বলেন, ‘এলাকায় জনপ্রিয়তা, গ্রহণযোগ্যতা ও দলের প্রতি যাদের আনুগত্য রয়েছে তাদেরই আগামীতে দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হবে।’

ফারুক খান বলেন, ‘প্রতিবারই ৮০ থেকে ১০০ জন নতুন প্রার্থীকে দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হয়। বিগত জাতীয় নির্বাচনে সেটা ৫০ জনেরও অধিক ছিল। এবার তা আরও বাড়বে। নতুন এ প্রার্থীদের মধ্যে অপেক্ষাকৃত তরুণদেরই প্রাধান্য দেয়া হবে।’

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.