সেই পাইবাসকেই আবারো কোচ করতে আগ্রহী বিসিবি

রাশেদুল হাসান, সিটিজিবার্তা২৪ডটকম

বুধবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৭

সেই পাইবাসকেই আবারো কোচ করতে আগ্রহী বিসিবি

সাংবাদিকদের সামনে কথা বলছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এর আগে একবার বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের কোচ হয়েছিলেন রিচার্ড পাইবাস। পাকিস্তানের দায়িত্ব ছাড়ার পর ২০১২ সালের ৩০ জুন পাইবাসকে দায়িত্ব দেয় বিসিবি। স্টুয়ার্ট ল দায়িত্ব ছাড়ার পর পাইবাসকে নিয়োগ দেয় বিসিবি।

শুরুতে তাকে দুই বছরের জন্য জাতীয় দলের দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু পাঁচ মাসেই বাংলাদেশের সঙ্গে তার যাত্রা শেষ হয়। এরপর বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেন শেন জার্গেনসেন। দায়িত্ব ছাড়ার পর জানা যায়, চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করা ছাড়াই জাতীয় দলকে নিয়ে কাজ করেন পাইবাস। চুক্তিতে তার দাবি অনুযায়ী ছুটি উল্লেখ না থাকায় চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেননি পাইবাস। এবং ছুটির কথা জানিয়ে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার পর আর ফিরে আসেননি। এরপর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে নিয়ে গণমাধ্যমে কড়া সমালোচনা করেন এবং ‘অপেশাদার’ বলতেও দ্বিধা করেননি!

সেই পাইবাসকেই আবারো কোচ করতে আগ্রহী বোর্ড! আজ পাইবাস বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কাছে প্রেজেন্টেশন দিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে নিয়ে নিজের পরিকল্পনা জানিয়েছেন। বোর্ড সভাপতি এবং অন্যরা পাইবাসের প্রেজেন্টেশনে সন্তুষ্ট! তাহলে কি পূর্বের বিষয়াদি ভুলে গেছে বর্তমান বোর্ড? আগের বোর্ডের সঙ্গে পাইবাসের কী হয়েছিল, তা নিয়ে মাতামাতি নেই বর্তমান বোর্ডের।

নাজমুল হাসান বলতেও দ্বিধা করেননি, ‘বিগত বোর্ড নিয়ে কথা না বলাই ভালো।’ সব কিছু জানার পরও বোর্ড আবারো পাইবাসের ব্যাপারে আগ্রহী! শেষবারের তেতো অভিজ্ঞতা পাইবাসের কাছ থেকে জানতে চেয়েছিলেন বোর্ড সভাপতি। এমনটাই জানালেন তিনি, ‘পূর্বের তেতো অভিজ্ঞতা অবশ্যই আমাদের মাথায় আছে। তাকে এই ব্যাপারে প্রচুর প্রশ্নও করা হয়েছে। সেও স্বাভাবিক উত্তর দিয়েছে। এইগুলা না বলাই ভালো, এগুলো বলে লাভ নেই।’

পাইবাস নিজ থেকেই বাংলাদেশের কোচ হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তবে চন্ডিকা হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের দায়িত্ব ছাড়ার পর বিসিবির পছন্দের তালিকার শীর্ষেও ছিলেন পাইবাস। পাইবাসে ছাড়াও বাংলাদেশের কোচ হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ফিল সিমন্স ও জিওফ মার্শ। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, জ্যাস্টিন লাঙ্গারও আছেন এ তালিকায়। ফিল সিমন্স আগামী ৯ ডিসেম্বর সাক্ষাৎকার দিতে আসছেন। ক্রিকেটারদের অনেকের ভোট ফিল সিমন্সের পক্ষে।

ভালো কোচ পেতে সংকট হচ্ছে না কি, এমন প্রশ্নের উত্তরে নাজমুল হাসান বলেন, ‘ভালো কোচ যারা আছে তারা এর মধ্যে ব্যস্ত কোথাও না কোথাও। এখন প্রশ্নটা জাগে যেখানে আছে সেখান থেকে আসবে কি না। কেউ হয়তো এখন পারবে না, এক বছর পর পারবে। কেউ দুই বছর পরে পারবে। কিন্তু আমাদের অপেক্ষা করার সুযোগ নেই।’

বোর্ড আগের থেকে এখন অনেক পেশাদার। হাথুরুসিংহে বাংলাদেশে চাকরি করা অবস্থায় তৃতীয় সর্বোচ্চ বেতনও পেয়েছেন। বোর্ড সভাপতির বিশ্বাস, বাংলাদেশের ক্রিকেটে এখন ভালো অবস্থানে এবং মানসম্মত জায়গায় পৌঁছেছে, যেকোনো কোচই বাংলাদেশে এসে কাজ করতে চাইবে। সেটা যেকোনো পেশাদার লোকও। তাই বোর্ড সভাপতিও পাইবাসকে নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত, ‘পাইবাস কিন্তু হাইগ্রেডের কোচ। তার সুনাম আছে। কাজেই ভালো কোচ পাওয়া যাচ্ছে না এটা ঠিক না।’

শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে নিয়োগ কোচ দেওয়া হবে কি না, তা নিশ্চিত নয়। তবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কোচের ঝামেলা শেষ করতে চাইছে বোর্ড। কোচের দৌড়ে পাইবাস অনেকটাই এগিয়ে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না!

আপনার মতামত দিন....

এ বিষয়ের অন্যান্য খবর:


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image