চট্টগ্রামে শীত বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে গরম কাপড়ের চাহিদাও

শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিটিজিবার্তা২৪ডটকম

চট্টগ্রামে শীত বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে গরম কাপড়ের চাহিদাও

চট্টগ্রাম : মাঘের শুরু মাত্র ,এর মধ্যে জেঁকে বসেছে শীত। গত দুদিনের গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শীতের প্রকোপ আরো বাড়িয়ে দিয়েছে । শীত বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে গরম কাপড়ের চাহিদাও। শীতবস্ত্রের দোকানে লেপ, কম্বল, সোয়েটার, ব্লেজারসহ নানান গরম কাপড় কেনার জন্য বেড়েছে ক্রেতাদের ভীড়।

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের জহুর হকার্স মার্কেট, আগ্রাবাদ, জিইসি মোড়,  দুই নম্বর গেটসহ বিভিন্ন এলাকার ফুটপাতে ৫০০ টাকার  মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে সোয়েটার,কানটুপি, মাফলার, মোজা ও হাত মোজাসহ নানা ধরনের শীতের পোশাক। গরিব-ধনী সহ সকল শ্রেনীর মানুষ ভিড় করছেন এসব দোকানে।

চট্টগ্রামের আবহাওয়া অধিদপ্তরের সহকারি আবহাওয়াবিদ সুশ্মিতা বড়ুয়া সিটিজিবার্তা২৪ডটকম’কে জানান, সারাদেশে বর্তমানে মৃদু থেকে মাঝারি শৈতপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে,সেই তুলনায়  চট্টগ্রামে শীতের প্রকোপ অপেক্ষাকৃত কম। বৃহস্পতিবারের গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির পর মেঘ কেটে যেতে শুরু করায় শীতের তীব্রতা বেড়েছে।বৃহস্পতিবারের চেয়ে তাপমাত্রা দশমিক ২ ডিগ্রি বেড়েছে, আজ (শুক্র সবার) চট্টগ্রামের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ১৫ দশমিক ২ ডিগ্রি । সামনে শীতের তীব্রতা আরো বাড়বে, তবে তা ১৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি  থেকে ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকবে।

এদিকে গতোকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরের বিভিন্ন হকার্স মার্কেটগুলো সরেজমিনে দেখা যায়, সারাদিনের গুড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি উপেক্ষা করেই শীতবস্ত্রের দোকানগুলোতে ক্রেতাসাধারণের উপচে পড়া ভীড় দেখা যায়। নগরীর ফুটপাত ও মার্কেটের শীতবস্ত্রের দোকানগুলোতে ছিল বেচাকেনার ধুম।

কয়েকজন বিক্রেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, গত কয়েকদিনের তীব্র শীতে বেচাকেনা কয়েকগুণ  বেড়েছে। দাম কম হওয়ায় অনেক ধনী পরিবারের সদস্যরাও শীতের কাপড় কিনতে এখানে আসছে। এবার শীতের শুরুতে শীতের কাপড় তেমন বিক্রি না হলেও এখন প্রচুর বিক্রি হচ্ছে। সোয়েটার ও চাদর বিক্রি গত বছরের তুলনায় এবার অনেকগুণ বেড়েছে।

তবে শিশুদের শীতের কাপড়ের দাম গত বছরের তুলনায় এবার বেশি বলে অভিযোগ করেন কয়েকজন ক্রেতা। বাচ্চার জন্য কাপড় কিনতে এসেছিলেন রিক্সাচালক জয়নাল আবেদিন সিটিজিবার্তা২৪ডটকম ‘কে বলেন, গত বছর বাচ্চাদের সোয়েটার ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এবার ১৫০ থেকে ১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ফুটপাতে শীতের কাপড় বিক্রি করছিলেন আরিফুল নামের একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। বিক্রি কেমন হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি জানান, দিনে প্রায় একশ সোয়েটার বিক্রি করছেন। চাদর বিক্রি করছেন ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকা দরে। এছাড়া কানটুপি, মোজা বিক্রি করছেন ৩৫ থেকে ৫৫ টাকা পর্যন্ত দামে।

বেশকিছু ক্রেতার সাথে কথা বললে তারা জানান, শীত  বাড়ায় এর প্রকোপ থেকে রক্ষার জন্য এখানে আসলে বিপনী বিতান গুলো থেকে অপেক্ষাকৃত কম দামে গরম  কাপড় পাওয়া যায়। ফুটপাত থেকে কাপড় কেনার সময় সতর্ক থাকতে হয়। কারণ দোকানিরা প্রায় দ্বিগুণ দাম চেয়ে বসে।

সিটিজিবার্তা২৪ডটকম/২২ জানুঃ/ জেএ/ এম কে  ১০:১৯ মিঃ

আপনার মতামত দিন....

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।


CAPTCHA Image
Reload Image

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.